ticket cricket

 

মিরপুর ক্রিকেট স্টেডিয়ামের দর্শক ধারন ক্ষমতা প্রায় ২৫ হাজার। যার ৬০% অর্থাৎ ১৫ হাজার টিকিট দেশের ধনী ধনী ফকির মিসকিনদের মাঝে সৌজন্যমূলক ভাবে বিনামূল্যে বিতরন করা হয় কোন লাইনে দাড় করানো বা সহজ ডট কমের কোন রকম ভোগন্তি ছাড়া।

ক্রিকেটের এই বিখ্যাত ফ্রি দর্শক গুলির বেশির ভাগেই খেলা শেষে পাশের জনকে হয়ত জিজ্ঞেস করেন, বাংলাদেশ আজকে ইংল্যান্ডের সাথে কত গোলে হারল?? 

অন্যদিকে বিখ্যাত সেই ১৫-১৬ হাজার ফকির মিসকিন বাদে ১৬কোটি ক্রিকেট ভক্ত দর্শক সহজ ডট কমের কঠিন ধান্দা প্যাঁচ অতিক্রম করে, অথবা সারা রাত্রি দুইমাইল লম্বা লাইনে দাড়িয়ে থেকে পুলিশের লাথি গুঁতু পেড়িয়ে অবশেষে হক টাকার বিনিময়ে ৭-৮হাজার টিকিট বরাদ্দ পায়। বাঁকি ২-৩ হাজার পাওয়া যায় ৮-১০ গুন বেশি দামে কালোবাজারিদের মাধ্যমে। অর্থাৎ একজন দর্শককে খেলা দেখতে যাওয়ার কয়েক দিন আগে থেকেই বড়সড় একটা যুদ্ধের প্রস্তুতি নিতে হয়, যার নাম টিকিট যুদ্ধ।

প্রশ্ন শুধু এটাই, মোট টিকিটের প্রায় ৬০% কেন সৌজন্যমূলক ভাবে বিতরন করা হয়? আর আম জনতার ৪০% টিকিটের একটি অংশ কেন এমন একটি ওয়েব সাইটের মাধ্যমে ছাড়া হল যারা কিনা তাদের ওয়েব সাইটের ট্রাফিক বাড়ানোর সামান্য লোভে টিকিট সর্বরাহের সূচী প্রকাশ না করে নোটিশ টানিয়ে রেখেছে সময় মত (Time to Time) টিকিট পাওয়া যাবে। আর টিকিট পাগল ক্রিকেট ভক্তগন ২৪ ঘন্টা সহজের কঠিন প্যাঁচে ঘুরপাক খেয়ে টিকিট প্রাপ্তির সময়টা জানতে না পারলেও সব শেষে জানতে পেরেছে টিকিট অনেক আগেই শেষ হয়ে গেছে।

ক্রিকেট বোর্ড আমাদের বলবেন কি যে, এই ৬০% সংখ্যাটা কি রাজনৈতিক, নাকি অনৈতিক? এখানে অর্থনৈতিক কোন কিছু তো চোখে পরছে না। 

ভাবছি, সহজ ডট কমের সাথে, সামনে বা পিছনে কোন অর্থনৈতিক সম্পর্ক আছে কি? যার কারনে টিকিটের সাথে বিভিন্ন চার্জ ও ভ্যাট লাগানো হয়েছে।

আমাদেরকে টিকিটের মূল্যের সাথে ভ্যাট, অবৈধ চার্জ দিতে হয়, আর ৬০% এর দামটাও নেয়া হয় না কেন?

প্রশ্নটা রচনামূলক হলেও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের কাছে এর সংক্ষিপ্ত ও সহজ সমাধান আশা করছি, তবে অবশ্যই সমাধানটা যেন সহজ ডট কমের মত না হয়। 

লেখক পরিচিতি
এম, এইচ, মিনহাজ
আমি বিভিন্ন বাংলা/ইংরেজী ব্লগের একজন অনিয়মিত এবং সখের ব্লগার। তবে নিয়মিত লেখার ইচ্ছে থাকলেও অনিয়মিত ভাবেই পাঠকদের বিরক্ত করে থাকি। আমার লেখার বিষয়বস্তু- যা মনে আসে তাই। কারও কাছ থেকে বাহবা পাওয়ার জন্য লিখি না। কেউ আমার লেখা পছন্দ করলে খুশি হই তবে অপছন্দ করলেও লেখালেখি বন্ধ করার কোন অবকাশ নেই, কারন আমি একান্ত সখের বশেই লেখালেখি করি।
আমার ব্লগ সমুহ:

আপনার মতামত দিন


সিকিউরিটি কোড
রিফ্রেশ